২রা অক্টোবর, ২০২০ ইং, ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম :

কৃষি জমি নষ্ট করে বাড়ি বানানো অপরাধ : পূর্তমন্ত্রী

কৃষিকাজ ডেস্ক» কৃষি জমি নষ্ট করে বাড়ি বানানোকে অপরাধ হিসেবে আখ্যায়িত করে কৃষি জমি রক্ষায় আইন করা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন। মঙ্গলবার সচিবালয়ে খাদ্য নিরাপত্তায় কৃষি জমি রক্ষায় পরিকল্পিত গ্রাম-নগর ও গৃহায়ণ বিষয়ক জাতীয়ভিত্তিক সুপারিশ প্রতিবেদন উপস্থাপন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) এ সুপারিশ উপস্থাপন করে।

জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে পরিকল্পিত ও গুচ্ছ (ক্লাস্টার) আবাসন প্রয়োজন জানিয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘কেউ দুবাই গিয়ে ইনকাম করে এনে ইচ্ছামত ধানি জমি নষ্ট করে অন্য জায়গায় বাড়ি করছে। আমি বলব, দিজ ইজ এ ক্রাইম। এটা খাদ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি। ধানি জমি, কৃষি জমি রক্ষায় আইন করতে হবে’।

মোশাররফ হোসেন বলেন, কৃষি জমিতে যদি কাউকে বাড়ি করতে হয় তাকে অবশ্যই ইউএনও বা সংশ্লিষ্ট অন্য কারও কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। এভাবে যদি ধানি জমি নষ্ট হয় তাহলে আমরা খাদ্যে যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছি তা বজায় থাকবে না।

তিনি বলেন, ‘ ১৯৭০ সালে নির্বাচনের সময় শুধু ধানক্ষেত দেখেছি, বিল দেখেছি, ঘরবাড়ি কম দেখেছি। মানুষ এত ছিল না। এখন মানুষ অনেক বেড়েছে, কৃষিজমি কমে গেছে। কৃষি জমি একেবারে সংকুচিত হয়ে গেছে’। মোশাররফ হোসেন আরও বলেন, ‘গৃহ নির্মাণ শুধু ইট দিয়ে হয়। এটা ঠিক না। নদীতে অনেক বালু আছে। ড্রেজিং করে কাদা নিয়ে ইট তৈরি করতে পারি। সহজে উপরিভাগের মাটি নিয়ে (ইট তৈরিতে) যাব, এটা একটা ক্রাইম। ইউএনও যারা আছেন, তাদের এটা দেখা উচিৎ এবং টোটালি সেটা (উপরিভাগের মাটি নিয়ে ইট তৈরির ভাঁটা) বন্ধ করে দেয়া উচিৎ।এছাড়া ধানি জমিতে যেসব ইটভাটা আছে সেগুলোও ইমিডিয়েটলি বন্ধ করে দেয়া উচিৎ’।

Share Button